1. admin@cumillardurbin.com : admin :
শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১১:০৯ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
RANGS ELECTRONICS LTD-এর ১২ কোটি টাকা আত্মসাৎ মামলার প্রধান আসামী শুভ কুমিল্লা জেলা পুলিশ কর্তৃক গ্রেফতার ঢাকা কাঁপাতে আসছে বিটিএস ব্র্যান্ড সাংবাদিকতায় অনন্য ভূমিকা রাখায় সম্মাননা পেলেন আরটিভির সাংবাদিক নাইমুর রহমান শান্ত মালেশিয়ায় বৃহত্তর কুমিল্লা সমিতির আয়োজনে কুমিল্লার নামে বিভাগ বাস্তবায়নের লক্ষে মতবিনিময় সভা গ্লোবাল ইয়ুথ লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড পেলেন ডাঃ তাহসিন বাহার সূচনা কুমিল্লা-৩৫০০” এর সিলেট ও সুনামগঞ্জে ত্রান-সাহায্য প্রদান মহানবীকে নিয়ে কটুক্তির প্রতিবাদে লাকসামে বিক্ষোভ মিছিল। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে ৭১ টিভির গাড়ি ভাঙ্গচুর কুমিল্লাস্থ বৃহত্তর লাকসাম-মনোহরগঞ্জ ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের পুনঃমিলনী-২০২২ অনুষ্ঠিত কুসিক নির্বাচনে বিজয়ী হলে ঘুষ না নেওয়া সহ রিফাতের ১১ দফার অঙ্গিকার।

টানা তৃতীয়বার নাসিক নির্বাচনে জয়ের হ্যাটট্রিক করে মেয়র নির্বাচিত সেলিনা হায়াৎ আইভী

  • আপডেট সময় : রবিবার, ১৬ জানুয়ারি, ২০২২
  • ১৩০ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক।।
নাসিক নির্বাচনে টানা তৃতীয়বারের মতো নির্বাচনে জয়ের হ্যাটট্রিক করলেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী। প্রায় দ্বিগুণ ভোটের ব্যবধানে নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকারকে পরাজিত করেছেন তিনি। এ নিয়ে টানা তৃতীয়বার নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র নির্বাচিত হলেন আইভী।
রোববার ভোট গণনা শুরু হওয়ার পর থেকেই আওয়ামী লীগের প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভীর এগিয়ে থাকার খবর আসতে থাকে। রাতের দিকে ডিসি অফিসের সামনে উন্মুক্ত প্রাঙ্গণ থেকে রিটার্নিং কর্মকর্তা যখন ফল ঘোষণা করছিলেন, তখন রাস্তায় উচ্ছ্বসিত হাজারো মানুষ ‘আইভী’ আর ‘নৌকা নৌকা’ বলে স্লোগান দিচ্ছিলেন।

১৯২টি কেন্দ্রের ফলাফল পাওয়া গেছে। এতে সেলিনা হায়াৎ আইভী নৌকা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ১ লাখ ৬১ হাজার ২৭৩ ভোট আর স্বতন্ত্র প্রার্থী অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার হাতি প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৯২ হাজার ১৭১ ভোট।
২০১১ সালের ৫ মে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন প্রতিষ্ঠার পর এ নিয়ে তৃতীয়বার নির্বাচন হতে যাচ্ছে। সিটি করপোরেশন প্রতিষ্ঠার পর ২০১১ সালে অনুষ্ঠিত প্রথম নির্বাচনে তৎকালীন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী এক লাখ ৮০ হাজার ৪৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। ওই নির্বাচনের শেষ মুহূর্তে বিএনপির দলীয় সিদ্ধান্তে ভোট থেকে সরে দাঁড়ান অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার। ওই নির্বাচনে ভোট পড়েছিল ৭০ শতাংশ।২০১৬ সালে অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী হিসাবে সেলিনা হায়াৎ আইভী ১ লাখ ৭৫ হাজার ৬১১ ভোটে আবার নির্বাচিত হন। সেবার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির সাখাওয়াত হোসেন পান ৯৬ হাজার ৪৪ ভোট। ওই সময়ে ভোট পড়েছিল ৬২ শতাংশ।

এবার ব্যতিক্রমী একটি নির্বাচন দেখছেন নারায়ণগঞ্জবাসী। এ নির্বাচনে হেভিওয়েট দুই প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী ও অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার নির্বাচনী কোনো ইশতেহার ঘোষণা করেননি। তারা প্রচারের সময়ে বিভিন্ন ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে গিয়ে মৌখিক নানা প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২২ কুমিল্লার দূরবীন.কম । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা ছবি ভিডিও অনুমতি ছাড়া কপি করা বে-আইনি। সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ। বস্তুনিষ্ঠ সংবাদে কুমিল্লার দূরবীণের সাথেই থাকুন।
Theme Customized By Theme Park BD