1. admin@cumillardurbin.com : admin :
শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৯:৩৬ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
RANGS ELECTRONICS LTD-এর ১২ কোটি টাকা আত্মসাৎ মামলার প্রধান আসামী শুভ কুমিল্লা জেলা পুলিশ কর্তৃক গ্রেফতার ঢাকা কাঁপাতে আসছে বিটিএস ব্র্যান্ড সাংবাদিকতায় অনন্য ভূমিকা রাখায় সম্মাননা পেলেন আরটিভির সাংবাদিক নাইমুর রহমান শান্ত মালেশিয়ায় বৃহত্তর কুমিল্লা সমিতির আয়োজনে কুমিল্লার নামে বিভাগ বাস্তবায়নের লক্ষে মতবিনিময় সভা গ্লোবাল ইয়ুথ লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড পেলেন ডাঃ তাহসিন বাহার সূচনা কুমিল্লা-৩৫০০” এর সিলেট ও সুনামগঞ্জে ত্রান-সাহায্য প্রদান মহানবীকে নিয়ে কটুক্তির প্রতিবাদে লাকসামে বিক্ষোভ মিছিল। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে ৭১ টিভির গাড়ি ভাঙ্গচুর কুমিল্লাস্থ বৃহত্তর লাকসাম-মনোহরগঞ্জ ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের পুনঃমিলনী-২০২২ অনুষ্ঠিত কুসিক নির্বাচনে বিজয়ী হলে ঘুষ না নেওয়া সহ রিফাতের ১১ দফার অঙ্গিকার।

কুমিল্লায় বিক্রিতে শীর্ষে ফরিদা

  • আপডেট সময় : সোমবার, ৪ এপ্রিল, ২০২২
  • ১১৯ বার পঠিত

অপি।।
রমজানের ইফতারে মুসলিমদের অন্যতম প্রধান অনুষঙ্গ খেজুর। রমজানে প্রত্যেক মুসলিমের ঘরে ঘরে ইফতারে এ ফলের কোনো জুড়ি নেই।

এবারের রমজানের জনপ্রিয় খেজুরের তালিকায় শীর্ষে আছে মরিয়ম, আজুয়া ও সাফাবি। দামের দিক থেকে মেডজুল খেজুর শীর্ষে থাকলেও অধিক বিক্রি হওয়া খেজুরের তালিকা দখল করে আছে সর্বনিম্ন মূল্যের ফরিদা খেজুর।

সরেজমিনে কুমিল্লা চকবাজার পাইকারি ও খুচরা মার্কেটগুলোতে দেখা গেছে নানা জাতের খেজুরের সমারোহ। তার মধ্যে ছিল প্রতি কার্টুন (৫ কেজি) মেডজুল খেজুর ৪৫০০ টাকা, মরিয়ম ২৮০০ টাকা, সাফাবি ও লুলু ১৮০০ টাকা, নাগাল ১৪০০ টাকা, আজুয়া ১৩০০ টাকা, মাশরুক প্লাস ওয়ান ৩২০০ টাকা, মাশরুক নরমাল ১১০০ টাকা, সায়ের ১০৫০ টাকা, জায়িদি ও ফরিদা ১০০০ টাকা।

খুচরা বাজারের তুলনায় পাইকারি বাজারে খেজুর বিক্রি হচ্ছে দ্বিগুন। প্রতিদিন সকাল ৮ টা থেকে রাত ৮ টা পর্যন্ত খেজুর বাজারগুলো ক্রেতা-বিক্রেতায় জমজমাট থাকে। করোনার কারনে গত দু’বছর বেচাকেনা হ্রাস পেলেও পূর্বের তুলনায় এবার বেচাকেনা বৃদ্ধি পেয়েছে অনেক বেশি। অন্যদিকে স্টলে মানসম্মত খেজুর সাজিয়ে রেখেও ক্রেতার অভাব অনুভব করছেন খুচরা বিক্রেতারা।

খেজুর কিনতে আসা একজন ক্রেতা বলেন, করোনার আগে খেজুরের দাম অনেক কম ছিল। পূর্বের মতো সল্প দামে খেজুর ক্রয় করা যাচ্ছে না। কম মূল্যের খেজুর কিনতে হচ্ছে অতিরিক্ত দামে।

পাইকারি বিক্রেতা শরিফুল ইসলাম বলেন, বাজারে চাহিদা অনুযায়ী নানান জাত ও দেশের খেজুর আমদানি করেছি। বেচাকেনা গত দু’বছরের তুলনায় অনেক ভালো। ইউক্রেন যুদ্ধের কারনে চড়া মূল্যে খেজুর কিনতে হচ্ছে বিধায় প্রতি কেজিতে ৭ থেকে ৮ টাকা করে বৃদ্ধি পেয়েছে খেজুরের দাম। চাহিদা অনুযায়ী খেজুর এনেছি। অতিরিক্ত খেজুর মজুদ করিনি। ক্রেতা সমাগমও আলহামদুলিল্লাহ। আশা করি কয়েকটি রোযা গেলে দাম অনেকটা স্থিতিশীল হবে। দাম বাড়ার কোনো সম্ভবনা নেই। যে পরিমাণ খেজুর ছিল ইমপোর্ট করা তা প্রায় শেষ।।

সঠিক দামে ক্রয় করতে পারলে কমে আসবে খেজুরের দাম, এমনটাই দাবি বিক্রেতাদের।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২২ কুমিল্লার দূরবীন.কম । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা ছবি ভিডিও অনুমতি ছাড়া কপি করা বে-আইনি। সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ। বস্তুনিষ্ঠ সংবাদে কুমিল্লার দূরবীণের সাথেই থাকুন।
Theme Customized By Theme Park BD